1. admin@lalmonirhatsongbad.com : admin :
শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হাতীবান্ধায় পাচারের শিকার কলেজ ছাত্রী ভারতে উদ্ধার হাতীবান্ধায় ফেনসিডিলসহ দু’জনকে আটক করলো- ওসি শীর্ষ মাদক সম্রাট বিশু গ্রেফতার – ৩৫০ ফেনসিডিল ২১ কেজি গাঁজাসহ হাতীবান্ধায় ফেন্সিডিলসহ ইজি বাইক চালক আটক হাতীবান্ধায় মাদক ব্যবসায়ের মুল হোতা আটক ফেন্সিডিল উদ্ধার ইউ-পি সদস্য সহ ৩ জনের নামে মামলা লালমনিরহাটে মাদককারবারি ইউপি সদস্যের মাদক পাচার কালে যুবক আটক কালীগঞ্জে বজ্রপাতে দুইটি মহিষ ও এক কৃষকের মৃত্যু হাতীবান্ধায় ভাইকে খাবার দিয়ে ফেরার পথে হামলার শিকার বড় ভাই, থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ হাতীবান্ধায় সরকারি গুচ্ছগ্রামে মাটি ভরাট করে মামলা দিয়ে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

জমি নিয়ে বিরোধ হাতীবান্ধায় মেয়েকে মেরে হাসপাতালে পাঠালেন বাবা

  • আপডেট সময়: মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২
  • ৩৫ বার পঠিত

জমি নিয়ে বিরোধ….
হাতীবান্ধায় মেয়েকে মেরে হাসপাতালে পাঠালেন বাবা

হযরত আলী
স্টাফ রিপোর্টার:
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মর্জিনা বেগম(৪৭) নামে এক গৃহবধূকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে তারই বাবার বিরুদ্ধে। আহত ওই গৃহবধূ বর্তমানে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার(২৬ জুলাই) দুপুরে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। এর আগে গত রোববার(২৪ জুলাই) সকালে উপজেলার উত্তর জাওরানী এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

গৃহবধূকে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার উত্তর জাওরানী এলাকার আজিজুল হক(৬০), আবুল হোসেন(৫৫), আছিয়া বেগম(৬২) ও ফাতেমা বেগম(৫৫)। আজিজুল হক আহত মর্জিনা বেগমের বাবা ও ফাতেমা বেগম মর্জিনা বেগমের সৎ মা এবং আছিয়া বেগম ফুপু।

জানা গেছে, আজিজুল হকের প্রথম স্ত্রী আছিয়া বেগমের মেয়ে মর্জিনা বেগম৷ আজিজুল হক ২য় স্ত্রী নিয়ে আলাদা থাকেন। প্রায় দুই বছর আগে আহত গৃহবধূর স্বামী মৃত মোসলেন উদ্দিন ১৫ লক্ষ টাকার বিনিময়ে শশুর আজিজুল হকের কাছে আড়াই বিঘা জমি মৌখিক ভাবে ক্রয় করে পাকা বাড়ি তৈরি করে স্ত্রী, এক মেয়ে ও ছেলেকে নিয়ে বসবাস শুরু করেন। পরে জমিটি রেজিষ্ট্রী করে চাইলে শশুর আজিজুল হক আজকাল করে এক বছর অতিবাহিত করেন। এরই মধ্যে প্রায় ১১ মাস আগে মারা যান গৃহবধূ মর্জিনা বেগমের স্বামী মোসলেম উদ্দিন। পরে আর ওই জমি মেয়েকে রেজিষ্ট্রী করে দেননি বাবা আজিজুল। তা নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে বাবাকে বলেও কোন ফল পাননি। উল্টো তার বাবা মেয়ে মর্জিনাকে বাড়ি থেকে চলে যেতে বলেন।

এমতাবস্থায় গত ২৪ জুলাই সকালে বাবা আজিজুল হক ওই বাড়িতে গিয়ে মেয়েকে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলেন। এ নিয়ে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এর এক পর্যায়ে বাবা আজিজুল একটি লাঠি নিয়ে মেয়ের মাথায় আঘাত করেন।এমনকি এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন। পরে তার চিৎকার শুনে মা আছিয়া বেগম ছুটে আসলে তাকেও মারধর করেন তারা৷ এ সময় স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসে ভর্তি করান।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, মর্জিনা বেগমের মাথায় ব্যন্ডেজ করা। পাশে মা ও মেয়ে বসে আছেন। এ সময় মর্জিনা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বাবার কাছে জমি রেজিষ্ট্রী চাচ্ছিলাম। কিন্তু তিনি তা না করে উল্টো বাড়ি থেকে চলে যেতে বলেন। তার কথা না শুনায় আমার বাড়িতে এসে আমাকে নির্মমভাবে মারধর করে বলেই হাউ মাউ করে কেদে ফেলেন তিনি।

এ সময় কথা হয় মর্জিনা বেগমের মা আছিয়া বেগমের সাথে তিনি বলেন, আমার স্বামী আমাদের সাথে থাকেন না। সে ২য় স্ত্রী নিয়ে থাকেন। আমার মেয়ে জামাই বেচে থাকতে আমার স্বামীর কাছে ১৫ লক্ষ টাকা দিয়ে আড়াই বিঘা জমি ক্রয় করেন। সেটা রেজিষ্ট্রী চাইতে চাইতে জামাই মরেই গেলো। এখন মেয়ে চাচ্ছিলো। তাই তাকে মারধর করে। মেয়ের মাথায় চারটি সেলাই পরেছে। বাবা আমাদের কেউ নাই৷ আমি এটার সঠিক বিচার চাই।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আজিজুল হক বলেন, আমি তাদের কাছে কোন টাকা নেইনি৷ আর মারধরও করিনি। ওরাই আমাকে মেরেছে। এছাড়া ওই জমি আমার ছোট বউয়ের নামে দেয়া আছে। সেখান থেকে চলে যেতে বলছি তাই তারা আমাকেই মেরেছে।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাঈম হাসান নয়ন বলেন, আহত ওই গৃহবধূকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। সুস্থ হলে তবেই বাড়ি যেতে পারবে।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ লালমনিরহাট সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park