1. admin@lalmonirhatsongbad.com : admin :
মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১২:২৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হাতীবান্ধা গোতামারী ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যেগে সামাজিক- সম্প্রীতি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। অসত্যের কাছে নাহি হবে নত শির ভয়ে কাঁপে কাঁপে পুরুষ লড়ে যায় বীর সমাজকল্যাণ মন্ত্রী হাতীবান্ধা দইখাওয়ায় ছাগলের খাবার যোগাতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে প্রাণ গেলো যুবকের ইউপি চেয়ারম্যানের সুস্থতা কামনায় দোয়া-মিলাদ ফেসবুকে স্ট্যার্টাস হাতীবান্ধায় বাবা-ছেলের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছেন আওয়ামীলীগ নেতা হাতীবান্ধায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন হাতীবান্ধায় বিয়ের দাবীতে ভাতিজার ঘরে চাচি হাতীবান্ধার সিংঙ্গীমারীতে ফেনসিডিল-১২০ বোতলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হাতীবান্ধায় ক্ষমতার জোরে বাঁশঝাড় উজাড় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

হাতীবান্ধায় ছেলের লাঠির আঘাতে বৃদ্ধা মা হাসপাতালে।

  • আপডেট সময়: বুধবার, ২০ এপ্রিল, ২০২২
  • ১৩৯ বার পঠিত

মেজবাহ আল মুবীন লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় ছেলের লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন এক অসহায় বৃদ্ধা মা। ঝগড়া থামাতে গিয়ে ছেলে ও ছেলের বউয়ের হাতে লাঞ্চিত হন অসহায় পিতা রফিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাতীবান্ধা থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওসি এরশাদুল আলম।
এ ঘটনায় রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ছেলে রশিদুল ইসলাম, ছেলের বউ বেবি বেগমসহ ৩ জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার টিএনটি পাড়া এলাকায় বৃদ্ধ বাবা-মায়ের সাথে স্ত্রীপুত্র নিয়ে একই পরিবারে বসবাস করেন রশিদুল ইসলাম। এমতাবস্থায় গতকাল সকাল ৯ টার দিকে পারিবারিক বিষয় নিয়ে তাদের ঝগড়াঝাটি হয়। এর এক পর্যায়ে রশিদুল ও তার স্ত্রী উত্তেজিত হয়ে বৃদ্ধা মাকে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে মারপিট করে। এতে বৃদ্ধা রশিদা বেগম গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনা দেখে বাবা রফিকুল ইসলাম ঝগড়া থামাতে গিয়ে তার ছেলে ও ছেলের বউয়ের হাতে লাঞ্চিত হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতা রফিকুল ইসলাম তার বৃদ্ধা স্ত্রী রশিদা বেগমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে দেন। যার রেজি নং- ১৯৩৬। এ ঘটনা ঐদিন রাতে রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে তার ছেলে, ছেলের বউসহ ৩ জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।

এবিষয়ে কথা হলে রফিকুল ইসলাম বলেন, রশিদুল ইসলাম তার বউসহ প্রায়ই তাদেরকে মারধোর করেন। রশিদুলের এক ছেলে সেনাবাহিনী ও এক মেয়ে পুলিশে চাকরি করে আর সেই ক্ষমতা ও টাকার জোরে তারা কাউকেই মানেনা। ছেলে ও ছেলের বউয়ের উপযুক্ত বিচার চান অসহায় পিতা রফিকুল ইসলাম।

রশিদুলের স্ত্রী বেবি বেগম শশুর শাশুড়িকে মারধোরের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার শশুরই তাকে মারধোর করেছে।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওসি এরশাদুল আলম বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পুর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ লালমনিরহাট সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park