1. admin@lalmonirhatsongbad.com : admin :
শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ১২:১২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হাতীবান্ধায় পাচারের শিকার কলেজ ছাত্রী ভারতে উদ্ধার হাতীবান্ধায় ফেনসিডিলসহ দু’জনকে আটক করলো- ওসি শীর্ষ মাদক সম্রাট বিশু গ্রেফতার – ৩৫০ ফেনসিডিল ২১ কেজি গাঁজাসহ হাতীবান্ধায় ফেন্সিডিলসহ ইজি বাইক চালক আটক হাতীবান্ধায় মাদক ব্যবসায়ের মুল হোতা আটক ফেন্সিডিল উদ্ধার ইউ-পি সদস্য সহ ৩ জনের নামে মামলা লালমনিরহাটে মাদককারবারি ইউপি সদস্যের মাদক পাচার কালে যুবক আটক কালীগঞ্জে বজ্রপাতে দুইটি মহিষ ও এক কৃষকের মৃত্যু হাতীবান্ধায় ভাইকে খাবার দিয়ে ফেরার পথে হামলার শিকার বড় ভাই, থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ হাতীবান্ধায় সরকারি গুচ্ছগ্রামে মাটি ভরাট করে মামলা দিয়ে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

হাতীবান্ধায় বিয়ের প্রলোভনে ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা-আটক ১

  • আপডেট সময়: শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০২২
  • ৩৫৯ বার পঠিত

হুমায়ুন কবীর প্রিন্স  লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় বিয়ের প্রলোভনে মুসলিম তরুণীকে ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা ও ভয়ভীতি দেখিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণের অভিযোগে বিদ্যুৎ চন্দ্র (২০) নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার (১৬ জুলাই) সকালে আটক বিদ্যুৎ চন্দ্রকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

এর আগে গতকাল রাতেই বিদ্যুৎ চন্দ্রকে আটক করে পুলিশে দেয় এলাকাবাসী।

আটক বিদ্যুৎ চন্দ্র হাতীবান্ধা উপজেলার পুর্ব সিন্দুর্না এলাকার বিমল চন্দ্রের ছেলে ও একজন পোশাক শ্রমিক।
জানা যায়, নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করায় পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার এক তরুণীর সাথে ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন বিদ্যুৎ চন্দ্র। এরপর বিদ্যুৎ ওই তরুণীটিকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। পরে মেয়েটি বিদ্যুতের ধর্মীয় পরিচয় পাওয়ার পর তার সাথে সম্পর্ক ছিন্নকরার চেষ্টা করলে বিদ্যুৎ মুসলিম হয়ে তাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দেয়। ফলে ওই তরুনী পুনরায় প্রেমের সম্পর্ক স্থাপনে রাজি হয়।
একমাস আগে বিদ্যুৎ চন্দ্র মুসলিম হয়ে বিয়ে করবে প্রলোভন দেখিয়ে তরুনীটিকে তার নিজ বাড়িতে নিয়ে এসে একই সাথে বসবাস শুরু করে। এরপর মেয়েটি তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে বিদ্যুৎ চন্দ্র উল্টো মেয়েটিকে হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত করার জন্য চাপ দিতে থাকে এবং মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
এরপর মেয়েটিকে জোরপূর্বক শাঁখা সিঁদুর পড়াতে গেলে বাধ সাধে মেয়েটি। এনিয়ে উভয়ের মাঝে বাকবিতন্ডা শুরু হলে বিষয়টি এলাকাবাসী জেনে যায়।
ফলে উভয়কে ডেকে স্থানীয় আমিনুর মেম্বারের বাড়ির উঠানে বসে বিস্তারিত শুনেন এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। তারা বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধান করতে না পারায় ছেলে এবং মেয়ে উভয়কে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে থানা হেফাযতে দিয়ে দেয় ।
ওই দিন রাতে মুসলিম মেয়েটি বাদী হয়ে বিদ্যুৎ চন্দ্র এর বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগে মামলা করে।
এবিষয়ে সিন্দুর্না ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বলেন, বিষয়টি শোনার পর আমি ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে সবকিছু শুনে বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে তাদের থানা পুলিশের হেফাজতে দেয়া হয়।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার্স ইনচার্জ এরশাদুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক বিদ্যুতের বিরুদ্ধে মেয়েটি বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ও প্রতারণার মামলা করেছে। বিদ্যুৎ চন্দ্রকে আজ দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং মেয়েটির কোন অবিভাবক না থাকায় তাকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ লালমনিরহাট সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park